যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ)

215
Khan foundation jkf

এক নজরে যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ)

যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) পরিচয়

যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) যাত্রা শুরু হয় ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ তে ঘরোয়া ভাবে। মাত্র ৫ সদস্য একটি টিম ‘শান্তির পথে, মানবতার সেবায়’ এই স্লোগান বুকে ধারণ করে যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) সূর্যকান্দী খান বাড়ির “রানু মহলে” প্রায় ১০০ অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার দেওয়ার মাধ্যমে শুরু করে। ধীরে ধীরে যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) সদস্যের সংখ্যা বাড়তে থাকে।

যুব খান ফাউন্ডেশন এর (জেকেএফ) উদ্দেশ্য:

শান্তির পথে, মানবতার সেবায় স্লোগান নিয়ে সামাজের অসহায় সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে ২০১৭ সাল থেকে। অসহায় প্রতিবন্ধী পরিবারের পাশে, অসহায় রাস্তায় পরে থাকা ক্ষুধার্ত মানুষের পাশে, অসহায় শিক্ষার্থীদের পাশে থাকতে দেশের বিভিন্ন জেলায় ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। বিশেষ করে সরাইল উপজেলার বিভিন্ন ইউনিউনের কাজ গুলো চোখে পড়ার মত।

যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) কার্যক্রম:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমের প্রথম সারিতে রাখা যায় যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) কে। এই সংগঠনের মাধ্যমে বেশ কিছু কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। বিশেষ করে প্রতিবন্ধী পরিবারদের ১মাসের খাবার দেওয়া উল্ল্যেখ যোগ্য। বর্তমানে জেকেএফ আটটি প্রজেক্ট (জেকেএফ প্রতিবন্ধীর বন্ধু, জেকেএফ ক্ষুধার্তের বন্ধু, জেকেএফ সু-স্বাস্থ্যের বন্ধু, জেকেএফ প্রকৃতির বন্ধু, জেকেএফ উষ্ণতার বন্ধু, জেকেএফ সুুুু-শিক্ষার বন্ধু, জেকেএফ এক মুঠো ঈদ,জেকেএফ স্ব-নির্ভরতার বন্ধু) এর মাধ্যমে কাজ সম্পাদন করে থাকে। ২০১৭ সালে জেকেএফ প্রতিবন্ধীর বন্ধু, জেকেএফ এক মুঠো ঈদ এ দুটি প্রজেক্ট এর মাধ্যমে কালীকচ্ছ ইউনিয়ন এর বিভিন্ন ওয়ার্ড কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

করোনার প্রাধুর্ভাবে পৃথিবী যখন থমকে গেছে ঠিক তখন যুব খান ফাউন্ডেশন ১২-০৪-২০২১ইং তারিখে ১ম ধাপে ৭০ml এর ২০০ হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাস্তায় পড়ে থাকা অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করে। ০১-০৫-২০২১ ইং তারিখে ২য় ধাপে রিক্সাচালকদের মাঝে ৫০০ মাস্ক বিতরন, ১২-০৫-২০২১ইং তারিখে ৩য় ধাপে ৫০টি কর্মহীন পরিবারকে (রিক্সা চালক) ত্রান সহায়তা প্রদান করা হয় । তারপর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল থানায় ০৫-০৬-২০২১ ইং তারিখে ৪র্থ ধাপে আবারও ৭৫ টি পরিবার ও ১০ টি পরিবারকে বিকাশে নগদ অর্থ প্রেরন সহায়তা এবং ০৮-০৬-২০২১ ইং তারিখে ৫ম ধাপে আরো ১০০ টি নিন্ম মধ্যবিত্ত কর্মহীন অসহায় পরিবারের ভাই বোনদের জন্য ত্রান সহায়তা প্রদান করা হয়।

কিছু উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমের তালিকা:   

  • ২০১৭ সাল থেকে প্রতি মাসে “জেকেএফ প্রতিবন্ধীর বন্ধু” প্রজেক্ট এর মাধ্যমে অন্তত একটি অসহায় সুবিধা বঞ্চিত শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশুদের পরিবারকে ১মাসের খাবার প্রদান করা।
  • “জেকেএফ সু-স্বাস্থ্যের বন্ধু” প্রজেক্ট এর মাধ্যমে থ্যালেসেমিয়া রোগি ফরহাদ এর চিকিৎসার জন্য কিছু অর্থ ও ইমপেটিগো রোগি সাদিকা ও ব্রেস্ট এবসেস এর রোগি আলেয়া বেগম এর সম্পূর্ণ চিকিৎসার খরচ বহন করা হয়।
  • “জেকেএফ উষ্ণতার বন্ধু” প্রজেক্ট এর মাধ্যমে ২০২১ সালে শতাধিক শীতার্ত পরিবারে মাঝে শীতবস্ত্র দেওয়া হয়।
  • “জেকেএফ ক্ষুধার্তের বন্ধু” প্রজেক্ট এর মাধ্যমে রাস্তায় পরে থাকা ক্ষুধার্ত মানুষের ১বেলার আহার দেওয়া হয় যুব খান ফাউন্ডেশন এর সামর্থ্য অনুযায়ী। ★ প্রজেক্ট “জেকেএফ প্রকৃতির বন্ধু” পরিচালনা করে যার মাধ্যমে বৃক্ষরোপন করা হয় প্রতিনিয়ত।
  • “জেকেএফ স্ব-নির্ভরতার বন্ধু” প্রজেক্ট এর মাধ্যমে এরই মাঝে ১টি সেলাই মেশিন, ১ টি হুইল চেয়ার ও ৫ জনকে কর্মসংস্থান এর ব্যাবস্থা করা হয়েছে।
  • করোনার প্রাধুর্ভাবে ৫০০ মাস্ক, ২০০ টি ৭০ এমএল এর হ্যান্ড স্যানেটাইজার ও ২২৫ টি পরিবারকে খাবার সহায়তা করে।

যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) গ্যালারি

যুব খান ফাউন্ডেশন (জেকেএফ) এর সাথে যোগাযোগ

“জেকেএফ” সম্পর্কে যেকোনো প্রয়োজনে ইমেইল অথবা পেইজে মেসেজ করতে পারেন, এছাড়াও ভলেন্টিয়ার হতে চাইলে যোগাযোগ করতে পারেন এবং নিয়মিত আপডেট পেতে তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক গ্রুপ ও পেইজের সাথে সংযুক্ত হতে পারেন।

Previous articleOur Brahmanbaria – আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আমি মোহাম্মদ সজীবুর রহমান সজীব লস্কর পাপেল। বর্তমানে চীনের শানশি প্রদেশের আনকাং বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ের উপর B.Sc অনার্স করছি। আমি ব্রাহ্মণবাড়িয়া ট্রিবিউন এবং আর্টিকেল ফর পিপলের ইডিটর। এছাড়াও আমি Our Brahmanbaria App ও Online Trending Shop এর প্রতিষ্ঠাতা।